শুভ জন্মদিন নাসির উদ্দীন ইউসুফ




শুভ জন্মদিন নাসির উদ্দীন ইউসুফ

হোসাইন মোহাম্মদ সুমন: তিনি একাধারে নাট্যনির্দেশক, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সংগঠক। সাংস্কৃতিক অঙ্গনের একাধিক শাখায় রয়েছে তার বিচরণ। নাসির উদ্দীন ইউসুফ নির্মিত মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘গেরিলা’ কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সেরা চলচ্চিত্রের মর্যাদা লাভ করেছে। দেশের মাটিতে অর্জন করেছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে নির্মাণ করেছেন ‘একাত্তরের যিশু’ শিরোনামের আরও একটি প্রামাণ্যচিত্র। তার নির্মিত নতুন চলচ্চিত্র ‘আলফা’ এখন মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

তবে চলচ্চিত্র নির্মাতা নয়, নাট্যমঞ্চের পুরোধা ব্যক্তিত্ব হিসেবেই তিনি বেশি আলোচিত। নাট্যকার সেলিম আল দীন আর নির্দেশক নাসির উদ্দীন ইউসুফ জুটি বদলে দিয়েছেন বাংলাদেশের নাট্যচর্চার গতিধারা। এই জুটি আমাদের দিয়েছেন বাংলা নাটকের শিকড়ের খোঁজ।

দেশীয় নাট্য আঙ্গিক নির্মাণে বিভোর স্বপ্ন যুগল নাসির উদ্দীন ইউসুফ ও সেলিম আল দীন নাটককে গণমানুষের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য গড়ে তুলেছিলেন গ্রাম থিয়েটার, যার প্রায় আড়াইশ’ শাখা সারাদেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থেকে দেশের প্রান্তিক মানুষের নাট্যচর্চায় ভূমিকা রাখছে।

নাসির উদ্দীন ইউসুফের হাত ধরে আমরা পেয়েছি হুমায়ুন ফরীদি, সুবর্ণা মুস্তাফা, আফজাল হোসেন, রাইসুল ইসলাম আসাদ প্রমুখের মতো অভিনয়শিল্পী। বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী নাসির উদ্দীন ইউসুফ পেয়েছেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক (২০১০)। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়াটাকে জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন বলে মনে করেন তিনি।

এক জীবনের এতসব অর্জনের মধ্যেও তিনি বলেন, ‘আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা, দ্বিধাহীন মুক্তিযোদ্ধা।’ মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে এখনো সামনের সারিতে থাকেন মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দীন ইউসুফ।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি একজন যোগ্য স্বামী ও বাবা। তার স্ত্রী মঞ্চকুসুম ও সঙ্গীতশিল্পী শিমূল ইউসুফ। একমাত্র সন্তান এষা ইউসুফও একজন সংস্কৃতিকর্মী। আপাদমস্তক এই যোদ্ধা পেশাগত জীবনে একজন উদ্যোক্তা।

আজ ১৫ এপ্রিল, বহু গুণে গুণান্বিত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফের জন্মদিন। দ্য রিপোর্ট শুভেচ্ছা নিবেদন করছে এই গুণী মানুষটির প্রতি।