জিতেই বিদায় নিলেন মিসবাহ-ইউনিস




জিতেই বিদায় নিলেন মিসবাহ-ইউনিস

স্টার বাংলা ডেস্ক : অবশেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সিরিজ জেতার স্বাদ পেলো পাকিস্তান। এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ জিতেলেও সিরিজ জিততে পারেনি পাকিস্তান। এশিয়ান দলটির সেই অপূর্ণতা এবার রূপ নিল পূর্ণতায়।

এদিকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আর দেখা যাবে না পাকিস্তান ক্রিকেটের দুই স্তম্ভ মিসবাহ-উল-হক ও ইউনিস খানকে। একজন ভয়াবহ দুঃসময়ে অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়ে পাকিস্তানকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন হারানো গৌরব। আরেকজন দীর্ঘদিন ধরে ছিলেন ব্যাটিং লাইনআপের অন্যতম ভরসার প্রতীক। এমন দুই খেলোয়াড়ের বিদায়টাও হলো স্বপ্নের মতো। প্রথমবারের মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয়ের ইতিহাস গড়ে বিদায় নিলেন মিসবাহ-ইউনিস।

এই টেস্ট সিরিজেই দারুণ দুটি মাইলফলক স্পর্শ করেছিলেন মিসবাহ ও ইউনিস। মিসবাহ ছুঁয়েছিলেন টেস্ট ক্রিকেটে পাঁচ হাজার রানের মাইলফলক। আর ইউনিস পাকিস্তানের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে করেছেন টেস্টে ১০ হাজার রান। তবে বিদায়ী ম্যাচটা জিতে বিদায়বেলাটা আরও রাঙিয়ে নিয়েছেন মিসবাহ-ইউনিস। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচ শেষে ১-১ ব্যবধানের সমতার পর সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তান জিতেছে ১০১ রানের বড় ব্যবধানে।

ডোমিনিকায় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১০১ রানে হারিয়ে ইতিহাস গড়েছে পাকিস্তান। জেসন হোল্ডারের ক্যারিবীয় দলকে তিন ম্যাচ সিরিজে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে মিসবাহ বাহিনী।

এদিকে ১ উইকেটে ৭ রান নিয়ে পঞ্চম দিনের খেলা শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্রেইগ ব্রাফোর্ড ৩ রান যোগ করেই আউট হন ইয়াসির শাহর কাছে পরাস্ত হয়ে। হেটমেয়ার ২৫ রান করে মোহাম্মদ আমিরের বলে সরাসরি বোল্ড। শাই হোপের আশা থেমে গেছে ১৭ রানে।

সিরিজে দুর্দান্ত পারফর্ম করা রস্টন চেজ হার মানেননি পাকিস্তানি বোলারদের কাছে। ২৩৯ বলে ১২টি চার ও একটি ছক্কায় ১০১ রানে অপরাজিত ছিলেন। বিফলে গেল চেজের বীরোচিত লড়াই। অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ২২ রান করে হাসান আলীর বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন।

ইতিহাস গড়ে বিদায় নিতে পারার গৌরবটির জন্য মিসবাহ-ইউনিস অবশ্য ধন্যবাদ দিতে পারেন ইয়াসির শাহকে। পুরো টেস্ট সিরিজেই দারুণ বোলিং করেছেন এই লেগস্পিনার। তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসেও পাঁচ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের জয়ে অন্যতম প্রধান ভূমিকা ইয়াসিরের।

প্রথম ইনিংসে তিন উইকেটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে ইয়াসির নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট। তিনটি উইকেট গেছে হাসান আলীর ঝুলিতে। তিন ম্যাচে ২৫ উইকেট নিয়ে সিরিজসেরা নির্বাচিত হয়েছেন ইয়াসির।