ডেইলি সান সম্পাদককে হাইকোর্টে তলব




ডেইলি সান সম্পাদককে হাইকোর্টে তলব

স্টার বাংলা ডেস্ক: ইংরেজি দৈনিক ডেইলি সানের সম্পাদক ও এক প্রতিবেদককে তলব করেছেন হাইকোর্ট। মহাসড়কে দুর্ঘটনায় ১৯ লাখ ভুয়া লাইসেন্সধারী চালকের ভূমিকা নিয়ে করা এক প্রতিবেদন বিষয়ে আগামী ২৮মে সশরীরে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

সোমবার (১৫ মে) বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

এর আগে ২০১৫ সালের ২ আগস্ট ডেইলি সানে ‘রোড অ্যাকসিডেন্ট-নাইনটিন লাখ ফেইক ড্রাইভারস রুল দ্য হাইওয়েস’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

এই প্রতিবেদন নজরে নিয়ে একই বছরের ৮ আগস্ট প্রায় ১৯ লাখ ‘ভুয়া ড্রাইভিং লাইসেন্স’ জব্দের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। যেসব চালক এসব ভুয়া লাইসেন্স ধারণ ও ব্যবহার করছেন তাদের বিরুদ্ধেও যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়। একইসঙ্গে প্রতিবেদনের সত্যতার সপক্ষে ডকুমেন্ট দাখিল করতে পত্রিকা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

কিন্তু প্রতিবেদনের স্বপক্ষে কোন তথ্য এখন পর্যন্ত এফিডেভিট আকারে আদালতে দাখিল না করায় হাইকোর্ট ডেইলি সানের সম্পাদক ও সংশ্লিষ্ট রিপোর্টার পার্থসারথি দাসকে তলব করা হয় বলে জানান ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

ডেইলি সানের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ২০১৫ সালের জুন মাসের তথ্যের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, দেশে ১৮ লাখ ৭৭ হাজার চালকের কাছে বৈধ লাইসেন্স নেই, যার ফলে সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ছে।

গত ১৫ জুলাই থেকে ২১ জুলাইয়ের মধ্যে ১৫৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৯১ জন মারা গেছে। এসব দুর্ঘটনার ৬০ শতাংশই ঘটেছে চালকের দোষে। প্রকাশিত এই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ ও রুল জারি করেছিলেন।